Mr. Bean এর জীবনের অজানা দিকগুলো

0
119

Mr. Bean তার আসল নাম রোয়ান অ্যাট কিনসন জন্ম ৬ জানুয়ারি ১৯৫৫ সালে England এর Middle class একটা ফ্যামিলিতে , তার বাবা ছিলেন একজন কৃষক এবং মা ছিলেন একজন গৃহিণী । সে ছোটবেলায় chorister school durham এ পড়াশুনা করেন তখন তার সাথে British politician Tony Bleyer ও পড়াশুনা করতেন । Tony Bleyer United Kindom এর ১০ বছর ক্যাবিনেট ছিলেন । Mr. Bean ছোটবেলা থেকেই সবসময় হাসতে খেলতে থাকত এবং ছোটবেলা থেকেই চেহারা পরিবর্তন করে মানুষকে হাসাতে অনেক পছন্দ করত, এছাড়াও পড়ালেখায় তিনি ছিলেন অনেক ট্যালেন্টেড একজন ছাত্র ছিলেন এই জন্যই সে Electrical Engineering এ graduation করেন । কারন তার বাবা গত ১৪ বছর ঐ পেশায় ছিল যেটা তাকে কিছুটা হলেও প্রেরণা যোগায় । এরপর Oxford University Queen Collage থেকে মাস্টার্স কমপ্লিট করেন । কলেজে থাকার সময় সে ছোটখাটো কিছু character এ Acting করেন এবং তার পাশাপাশি সে script ও লেখা শুরু করেন । এছাড়াও সে character দেখতে কেমন হবে, কি ধরনের জামা কাপড় পড়বে এবং তার attitude কেমন হবে এসব কিছু নির্ধারণ করতেন । এসব করতে করতে সে বুঝতে পারে সে visual comedy তে অনেক এক্সপার্ট এবং তার ভিতরে আস্তে আস্তে self confident অনেক বেড়ে যায় তারপরে সে ভাবে visual comedy তে সে যদি ভালো কিছু করতে পারে তবে সে অনেক বড় কিছু হবে। এজন্য সে কলেজে পড়াকালীন সময়ে কিছু অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে ।

আপনি যদি Mr. Bean সিরিজগুলো দেখেন অবশ্যই লক্ষ করেছেন সে অভিনয়ের মধ্যে ১ টা শব্দও ভালভাবে উচ্চারণ করে না। এর পিছনে মূল কারন হচ্ছে তার মুখের জড়তা সে চাইলেও ভালভাবে কথা বলতে পারে না আমাদের মত । কিন্তু মুখে জড়তা থাকার পরও Electrical Engineering University থেকে graduation কমপ্লিট করেন। তারপরেও সে লাইফে কেন কমেডিয়ান হতে চেয়েছিলেন? কিভাবে সে তার লাইফের এত বড় সমস্যাকে লাইফের বড় opportunity বানিয়েছে আমার জানাব আজ এই ভিডিওতে ।
Mr. Bean কলেজে পড়াকালীন সময়ে কিছু অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে কিন্তু সে তার মুখের জড়তার কারনে সে চাইলেও ভালভাবে কথা বলতে পারত না । তারপর সে অনেক টিভি শো তে participate করার জন্য application করে । কিন্তু তার কথা বলার সমস্যার কারনে তাকে চলে আসতে হয় । তারপর সে তার সমস্যাগুলো খুজতে থাকে এবং সে খুঁজে পায় যখন সে অভিনয় করে সে তখন ভালো ভাবেই কথা বলতে পারে কিন্তু সাধারণ জীবনে সে ভালভাবে কথা বলতে পারে না মানে কথা বলার সময় আটকে যায়। এটা দেখেই তার confident level আরও অনেক বেড়ে যায় সে এটা মনে করে যে আমি হয়ত রিয়েল লাইফে কথা বলতে পারিনা কিন্তু অভিনয় করার সময় আমার কথা বলার কোন সমস্যা হয় না । তাই সে আবার ও চেষ্টা শুরু করে এবং অনেক যায়গায় apply করে কিন্তু তার চেহারা ভালো না হওয়ার কারনে তাকে সবাই রিজেক্ট করে দেয়।
কোন সাধারণ মানুষ হলে মনে করত তার মুখে সমস্যা এবং সে দেখতেও অত ভালো না কি দরকার অভিনয় জগতে নিজের ক্যারিয়ার বানানো? যেখানে আমার এত বড় Engineering degree আছে , ভালো একটা জব করাই ভালো হবে।
কিন্তু না Mr. Bean ছিলেন এমন একজন মানুষ যে বাকীদের থেকে আলাদা , তিনি ছিলেন বিশেষ ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন ব্যক্তি তা আর কেউ না জানুক তিনি খুব ভালো করেই জানত । সে তার ফ্যাশন কে ফলো করতে কখনও পিছ পা হয়নি।
তার সমস্যাকে কিভাবে সে ক্যারিয়ার বানাবে ঠিক এই চিন্তা থেকেই discover হয় Mr. Bean character. তিনি প্রথমে Oxford University তে Richard Curtis এর সঙ্গে কথা বলেন যিনি একজন চেনা পরিচিত ফ্লিম ডিরেক্টর এর সাথে আলোচনা করে Mr. Bean TV Show বানানোর Plan করেন । তবে তিনি এক ইন্টারভিওতে বলেন , Mr. Bean এই মজাদায়ক কমেডির প্রেরণা পেয়েছিলেন Actor মঞ্জুরুল নামক French comedy character থেকে ।
Mr. Bean এর আগে রোয়ান অ্যাট কিনসন আরও ১ টি শো ব্রডকাস্ট করেছিল যে শো টির নাম ছিল not the nine O’’ clock news , খুবই হাস্যকর ভাবে প্রকাশে আসে যেখানে তিনি বিভিন্ন অভিনেতা ও রাজনীতিবিদদের নকল করতে দেখা যায় । বিবিসি ধারা রোয়ান অ্যাট কিনসন কে ম্যান অফ দ্যা খেতাব দেওয়া হয়েছিল । এছাড়া টিভি শো টিকে অনেক অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয় । ঐ খান থেকেও সে বেশ জনপ্রিয়।
মজার ব্যাপারটি হল প্রথমে Mr. Bean নামটা Mr. White ছিল । তারপর সবাই মিলে Mr. Bean নাম রাখে। এরপর যখন ১৯৯০ সালে ১ জানুয়ারি Mr. Bean টিভি শো টিকে পাবলিক করা হয় খুবই অল্প সময়ের মধ্যে এটি খুব জনপ্রিয় হয়ে যায় । এই টিভি শো এর মাধ্যমেই Mr. Bean ব্রিটেনের সবচেয়ে বড় কমেডিয়ান হয়ে যায় । সে অনেক বিখ্যাত মুভিতেও কাজ করে Disney Movie The Lion King এ সে এক পাখির আওয়াজ দেয় এবং অনেক মুভিতে সে Actor হিসেবে কাজ করে ।
তার পার্সোনাল লাইফের কথা বলতে গেলে সে ১৯৯০ সালে বিবিসি এর মেকাপ আর্টিস্ট সুনিত্রাকে বিয়ে করে এবং তাদের ১টা বাচ্চাও হয়েছিল কিন্তু ২০১৪ সালে তাদের মধ্যে ডিভোর্স হয়ে যায় । তারপর তিনি ২০১৫ সালে নতুন রিলেশনে আসে এবং ২০১৭ সালে আরও একটা বাচ্চার জন্ম হয়। তিনি বাস্তব জীবনে ভিতু ও কেয়ারলেস টাইপের তবে গাড়ি চালানো ও রেসিং করা তিনি খুব পচ্ছন্দ করেন। তার কাছে অনেক গুলো স্পোর্টস কার আছে যেমন, Macclarent F-1 , Renald 5GT , Sedan . একবার গাড়ি রেসিং এ তার accident করে Astron martin v8 jigato গাড়ি ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায় কিন্তু সৌভাগ্য ক্রমে তিনি বেচে যায়। মার্চ ২০০১ সালে তিনি তার প্রাইভেট প্লেন নিয়ে ট্রাভেলে যান সেখানে তার পাইলট হটাৎ অজ্ঞান হয়ে যায় তখন রোয়ান প্লেনটিকে নিয়ন্ত্রণে আনে এবং পাইলটের জ্ঞান ফিরা পর্যন্ত হাওয়ায় ভাসিয়ে রাখেন। এখানে সব থেকে অদ্ভুত ব্যাপার হল সে এর আগে কখনই প্লেন চালায়নি।
তিনি হচ্ছেন ১৩০ মিলিয়ন টাকার মালিক যা শুধু তার অভিনয় নয় লন্ডন ও বিভিন্ন দেশে তার রিয়েল এস্টেটের ব্যবসার টাকা তিনি বলেন Mr. Bean সিরিজের জন্য তার একাউন্ট সবসময় টাকায় ভরা থাকে । ভাবা যায় , তিনি তার ভাঙ্গা গাড়ি বিক্রি করেই ১২ মিলিয়ন টাকা পেয়েছিলেন ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here