কুমিল্লার দুর্গা পূজা মন্ডপে কোরআন: উত্তেজনা, মন্দিরে হামলা

0
49

পূজা উদযাপন কমিটির সেক্রেটারি নির্মল পাল বলেন, বাংলাদেশের কুমিল্লার একটি পূজা মণ্ডপ থেকে কোরআন পাওয়ার পর বেশ কয়েকটি পূজা মণ্ডলে হামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, পুলিশ গিয়ে শহরের নানুয়ারদিঘি এলাকায় একটি পূজা মণ্ডপের মূর্তি সরিয়ে দেয় যখন খবর ছড়িয়ে পড়ে যে এতে কোরান রয়েছে। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যেই একদল লোক বেশ কয়েকটি মাজারে হামলার চেষ্টা করে।Rumors of insulting Quran in Durga Puja Muslim mob broke idols | Reading Sexy

তারা এখন পুজো বিরোধী বিক্ষোভ করছে, কোরআনকে বাদ দিয়ে পূজা ব্যাহত করার পরিকল্পনা করেছে।কিছু মণ্ডপে হামলার চেষ্টা করা হয়েছিল কিন্তু পুলিশের বাধার কারণে তারা প্রবেশ করতে পারেনি, কিন্তু গেট বা সামনের স্থাপনা ভাঙচুর করা হয়েছে।Communal violence in Comilla: Additional lawmen on the ground to avoid further unrest | Dhaka Tribune

জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ বলেন, তারা এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন।

আমরা টহল দিচ্ছি। আসুন আগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করি। এই মুহূর্তে বলতে পারছি না কত মণ্ডপে হামলা হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক ব্যবসায়ী বলেন, রাত ১১ টার দিকে হঠাৎ করে কোরানের অবমাননার খবর ছড়িয়ে পড়ে।কুমিল্লায় দুর্গা পূজামণ্ডপে কোরআন: উত্তেজনা, মন্দিরে হামলা - Bhorer Kagoj

তিনি জানান, রাত দশটার পর যখন নানুয়ারদিঘির মণ্ডপে কোরআন দেখা যায়, তখনই পুলিশকে খবর দেওয়া হয় এবং পুলিশ এসে কোরআন সরিয়ে দেয়।

কিন্তু খবরটি খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে এবং কয়েকজন মাদ্রাসার লোকজন ছাড়াও অনেক লোক প্রতিবাদ শুরু করে। একপর্যায়ে পুলিশ সেখান থেকে মণ্ডপে হামলা শুরু করলে ব্যবস্থা নেয়।

তিনি বলেন, কয়েকটি গুলির শব্দ শোনা গেছে কিন্তু সেগুলো কোথায় তা স্পষ্ট নয়।কুমিল্লার মন্দিরের সেই খবরটি। ব্রেকিং নিউজ। news for today ll - YouTube

এদিকে, ঘটনার পর, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোরআন অবমাননা করা হয়েছে দাবি করে ব্যাপক প্রচার শুরু হয় এবং ফেসবুকে অনেক প্রতিবাদ সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

প্রসঙ্গত, বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায় এখন তাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here