বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০
দুপুর ১:০৫

আজ বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর, ২০২০ | ৬ কার্তিক, ১৪২৭

বিজ্ঞাপন বা যে কোন প্রয়োজনে যোগাযোগ করুনঃ +88 01880 16 23 24

Home অপরাধ ৯ বছর ধরে প্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিত নিয়মিত সরকারি বেতন নেন দুদক আইনে...

৯ বছর ধরে প্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিত নিয়মিত সরকারি বেতন নেন দুদক আইনে মামলা

কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসায় সুদীর্ঘ ৯ বছর ধরে চাকুরিতে কর্মরত নেই এমন পাঁচ জন গভর্নিং বডি কর্তৃক বরখাস্তকৃত শিক্ষক যথাক্রমে মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ,ফরিদ উদ্দীন, মোহাম্মদ আইয়ুব, রাজিয়া আক্তার এবং মোহাম্মদ রেজাউল করিম কর্তৃক কেবল এমপিও শীটে নাম থাকার সুবাদে প্রায় ১ কোটি ৩৫ লক্ষ সরকারি টাকা আত্মসাৎ করেছেন মর্মে কক্সবাজার বিশেষ জজ আদালতে মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জনাব সাইফুল ইসলাম কতৃক একখানা অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে যাহার মামলা নং ১১/২০২০। মাননীয় আদালত অভিযোগ টি আমলে নিয়ে রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয় কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। তদন্ত কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। উক্ত অর্থ আত্মসাথের ব্যাপারে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ দুর্নীতি দমন কমিশন, অর্থ মন্ত্রণালয়, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন,শিক্ষা অধিদপ্তর,বাংলাদেশ ব্যাংক, জনতা ব্যাংক প্রধান কার্যালয় সহ সরকারি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অনেক অভিযোগ দায়ের করেছেন। উক্ত অভিযোগ তদন্তনাধীন। উপরোক্ত বিষয়সহ বরখাস্ত বিষয়ে মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সভাপতি জনাব আইয়ুব সিকদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন ” উক্ত ৫ জন শিক্ষক কে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী বিভিন্ন অভিযোগে তদন্ত রিপোর্টের ভিত্তিতে বরখাস্ত করা হয়েছে উক্ত আদেশ আমার জানামতে এখনো বহাল আছে কিন্তু অজ্ঞাত কারনে ১০ বছর এক দিন ও মাদ্রাসায় না এসে কয়েকজন সরকারি অসাধু কর্মকর্তা কে বশিভূত করে সরকারি লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করে যাচ্ছেন যা দেশ ও জনগনের জন্য খুবই হতাশাজনক যারা এ কাজে জড়িত তাদের কে আইনের আওতায় আনা উচিত। আমি অনেক জায়গায় বর্ণিত বিষয়ে অভিযোগ করেছি কিন্তু অদৃশ্য শক্তির কারনে বিষয় টি সুরাহা হচ্ছেনা আমি এই বিষয় দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছি। এ বিষয়ে অভিযোগকারী মাদ্রাসায় কর্মরত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জনাব সাইফুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন” মাদ্রাসায় ২০১৭ সাল হতে কমিটি নেই। কমিটি গঠনের নিমিত্তে বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড হতে অনুমতি, জেলা প্রশাসক মহোদয় কর্তৃক শিক্ষক প্রতিনিধি মনোনয়ন, মাননীয় সাংসদ কর্তৃক সভাপতি মনোনয়ন দিলেও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয় এর কাছে একাধীকবার অভিভাবক প্রতিনিধি মনোনয়ন দেয়ার জন্য আবেদন করা হলেও অদ্যাবধি সাড়া না দেওয়াই কমিটি গঠন সম্ভব হয়নি । আমি বিগত কমিটি কর্তৃক দায়িত্ব প্রাপ্ত হয়ে মাদ্রাসার প্রশাসনিক, দৈনন্দিন শ্রেণি কার্যক্রমসহ যাবতীয় কার্যাবলি আমার স্বাক্ষর ও তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয় ও কিন্তু অজ্ঞাত কারনে কেবল বেতন ভাতাদি অধ্যক্ষ দাবীদার জনাব আব্দুল হামিদ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মহোদয়ের স্বাক্ষরে বিল হয় অথচ মাদ্রাসা নিয়ন্ত্রণ কারী কর্তৃপক্ষ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক সর্বশেষ জারিকৃত প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী আমার স্বাক্ষরে বিল হওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। উক্ত মাদ্রাসা বোর্ডের সর্বশেষ প্রশাসনিক আদেশ এখনো কার্যকর আছে যাতে সুস্পষ্ঠ আমার স্বাক্ষরে বেতন উত্তোলনের কথা বলা আছে। তাছাড়া শিক্ষা অধিদপ্তরের আমার আবেদনের প্রেক্ষিতে বিজ্ঞান বিভাগ খোলার জন্য আবেদন করা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয় সরেজমিনে মাদ্রাসায় তদন্ত পুর্বক প্রতিবেদন দাখিল করেন। যেখানে সুস্পষ্ট ভাবে পরিলক্ষিত হয় আবদুল হামিদ ১০ বছর ধরে মাদ্রাসায় নেই”। প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত কাগজপত্র এবং মাদ্রাসায় রক্ষিত নথি ও জেলা শিক্ষা অফিসার কর্তৃক প্রেরিত পরিদর্শকের প্রতিবেদন ও বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড আঞ্চলিক শাখা চট্রগ্রাম পরিদর্শক জনাব জাহাঙ্গীর আলম এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়ের প্রতিবেদন ও আনুষঙ্গিক কাগজপত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে বর্ণিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোট ১১ জন শিক্ষক কর্মচারী কর্মরত আছেন কিন্তু গভর্ণিং বডি কর্তৃক ২০১১ সালে বরখাস্তকৃত শিক্ষক যথাক্রমে মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ,ফরিদ উদ্দীন, মোহাম্মদ আয়ুব, রাজিয়া আক্তার এবং মোহাম্মদ রেজাউল করিমের নাম হাজিরা খাতা, ক্লাস রুটিনে নেই এমন কি গত ১০ বছর তাদের স্বাক্ষরে প্রতিষ্ঠানের একটি কাজ ও হয়নি অথচ জনতা ব্যাংক রামু, কক্সবাজার শাখায় সংরক্ষিত বর্ণিত প্রতিষ্ঠানের বেতন বিলে দেখা যায় প্রতিষ্ঠানে চাকরি না করে ও নিয়মিত বেতন উত্তোলন করে যাচ্ছেন অভিযুক্ত ৫ জন শিক্ষক । আরোও খবর নিয়ে জানা যাই স্বামীর চাকরির সুবাদে রাজিয়া আক্তার চট্রগ্রামে বসবাস করেন,রেজাউল করিম হারবাং চকরিয়া বসবাস করেন,আব্দুল হামিদ ও ফরিদ উদ্দিন (সরকারি কাজী) বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়িতে বসবাস করেন, আইয়ুব নিজ বাডিতে বসবাস করেন। আরো বিস্তারিত খোঁজ নিয়ে জানা যায় উল্লেখিত ৫ জন শিক্ষককে প্রথম শ্রেণির সরকারি কর্মকর্তার সমন্বয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে গর্ভনিং বডি উক্ত ৫ জন শিক্ষককে নিয়মতান্ত্রিকভাবে চাকরি হতে চুড়ান্ত বরখাস্ত করেন। উক্ত চাকরি চ্যুত আদেশ কোন আদালত বা যথোপযুক্ত কতৃপক্ষ বাতিল করেনি যা অদ্যাবদি বহাল আছে। উক্ত বরখাস্ত আদেশ বহাল থাকা অবস্থায় কিভাবে তাদের বেতন ভাতার সরকারি অংশ ছাড় হয় তা নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এই ব্যাপারে মাদ্রাসা কতৃপক্ষের নিযুক্ত আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টের বিজ্ঞ আইনজীবী ব্যারিস্টার মারুফ ফাহিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন “বরখাস্ত আদেশ বহাল থাকা অবস্থায় কিভাবে বেতন বিলে স্বাক্ষর করেন তা প্রশ্নবিদ্ধ এই ব্যাপারে আমরা তথ্য অধিকার আইনে ব্যাংক সহ সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরে উপরোক্ত বিষয়ে আবেদন করেছি তথ্য পাওয়া সাপেক্ষে সুপ্রিম কোর্টের যথাযথ শাখায় প্রযোজনীয মামলা দায়ের করা হবে। কেবল এমপি ও শিটে নাম থাকার সুবাদে বরখাস্তকৃত শিক্ষকরা বেতন পাওয়ায় সরকারী কোষাগার চরম ক্ষতি হচ্ছে বলে মনে করেন সচেতন মহল। এই বিষয়টি সুরাহা করতে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ যথোপযুক্ত কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -sidebar sqr ad

Most Popular

কোটচাঁদপুর উপজেলার ৪নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কর্মির উপর অতর্কিত হামলা

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার সলেমানপুর ৪নং ওয়ার্ডের সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম (রনি) অতর্কিত হামলার শিকার হয়েছেন। তিনি জানান, কোটচাঁদপুর পৌর আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সহিদুজ্জামান...

পিকাপের ধাক্কায় নিহত হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী

জানা যায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায় ৩য় বর্ষে অধ্যায়নরত এই ছাত্রী নিতী পড়াশোনার পাশাপাশি একটি পার্ট টাইম জব করতো। জব থেকে নিজের বাসা ভাটারায় ফেরার...

জোহরের নামাজ চার রাকআত হইবার কারণ।

জোহরের নামাজ হযরত ইব্রাহীম আলাইহিসসালাম চারি কারণে চারি রাকআত নামাজ পড়িয়াছিলেন। ১ম রাকআত - আল্লাহ তায়ালা তাঁহার কার্যে রাজী থাকার জন্য, ২য় রাকআত -...

ফজরের নামাজ দুই রাকআত হওয়ার কারণ!

প্রশ্নঃ- নামাজসমূহ ২/৩/৪ রাকআত হইবার কারণ কি? উত্তরঃ- হযরত আদম আলাইহিসসালাম বেহেশত হইতে দুনিয়ায় পতিত হইবার পর যখন রাত্রির অন্ধকার আসিয়া উপস্থিত হইল, তিনি...

Recent Comments