সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৫০ পূর্বাহ্ন

মোবাইল ফোন | কেনার আগে ১৪ গুরুত্বপূর্ণ জিনিস মাথায় রাখা দরকার!

নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • সময় কাল : শুক্রবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ৭১ বার পড়া হয়েছে।
মোবাইল ফোন - কেনার আগে ১৪ গুরুত্বপূর্ণ জিনিস মাথায় রাখা দরকার
মোবাইল ফোন - কেনার আগে ১৪ গুরুত্বপূর্ণ জিনিস মাথায় রাখা দরকার
Spread the love

আমরা আমাদের মোবাইল কেনার জন্যে যখন Dokan Mobile এ যাই তখন আমরা কনফিশনে পরে যাই কি মোবাইল কিনবো? কত টাকা দাম হবে মোবাইল ফোনের? RAM, ROM, ডিসপ্লে, ক্যামেরা, স্টোরেজ, প্রসেসার, প্রসেসার স্পেসিফিকেশান, ক্লক স্পিড, গ্রাফিক্স প্রসেসার ইউনিট, অ্যাস্পেক্ট রেশিও, প্যানেল টাইপ, HDR আর নন HDR, ব্যাটারি, অপারেটিং সিস্টেম ইত্যাদি সম্পর্কে আমাদের জানতে হবে।

যখন আপনি একটি নুতুন মোবাইল কিনতে চান তখন আপনি না ঠকে একটি ভালো মানের মোবাইল ফোন কিনে আনা একটি বড় চ্যালেঞ্জের বললে চলে। স্মার্ট ফোন বাজারে একই দামের মধ্যে আমি একাধিক মোবাইল ফোন পাবেন। ঠিক তখন ই আপনার বিভ্রান্তিতে মধ্যে পরে যেতে হয়। মোবাইল ফোনও আমাদের জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই একটি স্মার্ট ফোন কেনার পূর্বে আপনাকে আরো সচেতনতা হতে হবে।

আজকে আমি আপনাদের সাথে স্মার্ট টিভি কেনার পূর্বে একটি ফোনের যে যে বিষয়গুলো জানা দরকার সেই বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

ডিসপ্লে

একটি ভাল বা বড় ডিস্পেল স্মার্টফোনে অন্য অন্য ছোট ফোনের তুলনায় কিছু বেশি জিনিস ভাল করে আপনি দেখতে পারেন। পূর্বে যখন আমরা ফোন কিনতাম তখন একটি ফোনের ডিসপ্লে হতো সর্বোচ্চ ১-৫ ইঞ্চি। কিন্তু বর্তমানে সেই ফোনের ডিসপ্লে হয়ে থাকে প্রায় ৬-৭ ইঞ্চি। একটি ফোনের ডিসপ্লে যত বড় হয় তত একটি ফোনে ভিডিও, বা অন্য কাজ করে তত বেশি মজা পাওয়া যায়। তাই আপনি যখন মোবাইল ফোন কিনবেন তখন অবশই ফোনের ডিসপ্লে এর দিকে ভালো ভাবে নজর দিতে ভুলবেন না।

ক্যামেরা

ফোন কেনার পূর্বে সেই ফোনের ক্যামেরা কত আছে তা কিন্তু আমরা দেখে শুনে কিনি। আসলে একটি ফোনের ক্যামেরা সেই ফোনের লেন্স আর মেগাপিক্সলা আর রেজিলিউশানের এর উপরে অনেক নির্ভর করে থাকে। তাই আপনি ফোন কেনার পূর্বে এই বিষয় গুলো ভালো করে দেখে নিবেন। ক্যামেরা যত ভালো হয় আপনার ফোনের পিকচার এবং ভিডিও কোয়ালিটি কিন্তু তত ভালো হয়ে থাকে।

র‍্যাম

আপনি যখন স্মার্ট ফোন কিনতে যাবেন তখন অবশ্যই ফোনের র‍্যাম এর দিকে একটু খেয়াল রাখবেন। কেননা র‍্যাম যত বেশি হবে ফোনের মাল্টি টাস্কার টোটো বেশি হবে।

পূর্বের 1-২ GB র‍্যামের ফোনের একটু চিন্তা করুন আর বর্তমাদের ৩,4,6,8GB র‍্যামের ফোনের একটু চিন্তা করুন। আপনাদের পূর্বের এই 1-২ GB র‍্যামের ফোনে কাজ করে যে মজা পেয়েছেন আর বর্তমানের ফোনের কাজের মধ্যে একটু তুলনা করলে আপনি ভালো বুঝতে পারবেন। বর্তমান তো ৮-১২ GB র‍্যামের ফোন মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে। আপনি সর্বনিম্ন ৬GB র‍্যামের ফোন নিলে ভালো পারফরমেন্স পাবেন।

স্টোরেজ

একটি ফোনের র‍্যামের পাশাপাশি আপনাকে সেই ফোনের স্টোরেজে এর দিকেও কিন্তু একটু খেয়াল রাখতে হবে। কেননা আপনার ফোনের স্টোরেজ যত বেশি হবে আপনি ততো বেশি ডাটা আপনার মোবাইল ফোন এ রাখতে পারবেন। তাছাড়া আপনি যখন আপনার ফোন এ এপপ্স ইনস্টল করেন তখন কিন্তু আপনার ফোন স্টোরেজে তা জমা হতে থাকে। আর তাই আপনার ফোনের স্টোরেজ যদি কম হয় তাহলে কিন্তু আপনার ফোন হ্যাং হওয়ার সম্বভনা অনেক বেশি হয়ে যায়। তাই আপনি আপনার ফোনের স্টোরেজ যত বেশি তত আপনার ফোনের স্পিড ঠিক থাকবে।  আপনি আরো বেশি ডাটা আপনার ফোনের মধ্যে রাখতে পারবেন।

প্রসেসার

আমরা জানি যে ফোনের খুব দরকারি যে জিনিস তা হলো আপনার ফোনের প্রসেসার। আসলে আপনার ফোনের প্রসেসর যত ভালো হবে আপনার ফোনের গতিও তত বৃদ্ধি পাবে। অর্থাৎ আপনার ফোন তত স্মুথ কাজ করবে। আপনি যদি কোয়াল্কম স্ন্যাপড্র্যাগন 845 বা এর থেকে বেশি প্রসেসার যদি পান তাহলে ফোন কিনবেন।  কেননা এই প্রসেসর গুলো অনেক শক্তিশালী প্রসেসর।

প্রসেসার স্পেসিফিকেশান

প্রত্যেক তা স্মার্ট ফোনের ই নিজস্ব কিছু স্পেক্স আছে যার মধ্যে অন্যতম একটি হলো প্রসেসার কোর্স। “1.4GHz Octa-Core” বা “2.0GHz” প্রসেসর স্পিড যত ভালো হবে আপনার ফোন ও তত ভালো চলবে। তবে এইগুলো ফোনের পারফরমেন্স ঠিক করে না। তবে ফোনের প্রসেসর কোর্স বেশি হলে আপনার ডাটা ট্রান্সফার, সহ অন্য অন্য বিষয় বেশ ভালো পারফরমেন্স করে। তো আমি বলবো আপনি স্মার্টফোন নিতে চাইলে আপনার ফোনের ফোনের প্রসেসার কোর্স বেশি দেখে নিবেন।

ক্লক স্পিড

কোনো ফোন কেমন পারফরমেন্স করবে তা ঠিক করে মূলত ক্লক স্পিডের উপরে। এই স্পিড GhZ. যেমন – ১.০GhZ, ২.০GHz, 2.9GHz, ইত্যাদি।

গ্রাফিক্স প্রসেসার ইউনিট

GPU কে সংক্ষেপে বলা হয় গ্রাফিক্স প্রসেসার ইউনিট। আর একটি প্রসেসর এর জন্যে একটি GPU খুব জরুরি। তাই আপনি ফোন কেনার পূর্বে এই বিষয় ভালো করে দেখে নিবেন।

অ্যাস্পেক্ট রেশিও

আপনার ফোনের স্ক্রিন সাইজের লম্বা আর চওড়ার বিষয়টি দেখা হয় মূলত অ্যাস্পেক্ট রেশিও এর মাধমে। তাই আপনার ফোনে কেনার পূর্বে 20.9 অ্যাস্পেক্ট রেশিও বা তার বেশি দেখে নিলে ভালো হয়।

প্যানেল টাইপ

প্যানেল টাইপ মূলত AMOLED, Supar AMOLED বা অপ্টিক AMOLED য়ের হয়ে থাকে। আপনার ফোন কেনার পূর্বে এই যে কোনো একটি হলেই চলবে।

ব্যাটারি

একটি শক্তিশালী ব্যাটারী ফোনের জন্যে যে কতখানি দরকার তা আমরা সবাই জানি। তাই ফোন কেনার পূর্বে আপনার ফোনের ব্যাটারী দেখে তারপরে ফোন কিনবেন।

অপারেটিং সিস্টেম

অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড বা iOS খুব জনপ্রিয়। তাই আপনি ফোন কেনার পূর্বে দেখে নিবেন ফোনের অপারেটিং সিস্টেম যেন লেটেস্ট ভার্শন থাকলে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও খবর
এই নিউজ পোর্টাল এর কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি ও দণ্ডনীয় অপরাধ ।
Design & Developed by Online Bangla News
themesba-lates1749691102