‘ মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ে’ রূপ নিতে পারে ইয়াস

0
58

যদিও ঘূর্ণিঝড় ইয়াস পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশায় আঘাত হানেছে, তবে এর মারাত্মক প্রভাব পড়বে বাংলাদেশে। বুধবার ঝড় যখন উপকূলে আঘাত হানে তখন দেশের ১৪ টি উপকূলীয় জেলা এবং চর ও দ্বীপপুঞ্জে ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার বেগে ঝাঁকুনির আশা করা যায়।

cyclone

এছাড়াও, ঘূর্ণিঝড় দ্বারা প্রভাবিত অঞ্চলগুলিতে ভারী থেকে খুব ভারী বৃষ্টির ঝুঁকি রয়েছে। আবহাওয়া অধিদফতরের এই পূর্বাভাসের সাথে দেশের তিনটি সমুদ্র বন্দর এবং কক্সবাজার উপকূলকে ৩ নম্বর সতর্কতা জারি করতে বলা হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে ভারতীয় আবহাওয়া অধিদফতর এবং জয়েন্ট টাইফুন অ্যান্ড ওয়ার্নিং সেন্টার পূর্বাভাস দিয়েছে যে ঘূর্ণিঝড়টি পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশার উপকূলে আঘাত হানতে পারে। তবে, যখন এটি উপকূলে আঘাত হানে, তখন এর গতি প্রতি ঘন্টা 130 থেকে 150 কিলোমিটার হতে পারে। 80914adbdce94ee63b6786307b67c557 5ac71d0d6fbb5

এর অর্থ এটি একটি খুব শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসাবে আঘাত করতে পারে। সেক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশে বাতাসের গতিবেগ ৮০ থেকে ১২০ কিমি প্রতি ঘন্টা হতে পারে। এক্ষেত্রে আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেছিলেন যে ইয়াস ভারতে খুব শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় হিসাবে আঘাত করতে পারে। তবে খুলনা সহ বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলগুলি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি জোয়ার এবং বাতাসের মুখোমুখি হবে। এদিকে, ঝড়ের প্রভাবের কারণে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় জেলাগুলিতে প্রবল বাতাস বইছে। জলোচ্ছ্বাসের পানি খুলনা, সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, নিচু অঞ্চল এবং বরগুনার চর অঞ্চলে প্রবেশ করেছে। অনেক জায়গায় বাঁধ উপচে পড়েছে এবং পানি প্রবেশ করছে। ইতিমধ্যে ডাবলার চরসহ সুন্দরবনের বেশিরভাগ ফিশিং গ্রাম তলিয়ে গেছে। দেশের উপকূলীয় জেলা থেকে বিভিন্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, সাতক্ষীরার শ্যামনগর ও খুলনার কয়রা সহ বেশ কয়েকটি উপজেলায় ইতোমধ্যে বাঁধ ভেঙে গেছে। সেখান থেকে এখন জনবসতি অঞ্চল এবং মাছের পুকুরে পানি প্রবেশ শুরু হয়েছে। জলোচ্ছ্বাসের জলের স্তর ক্রমাগত বাড়ছে। বাতাস অনেক জায়গায় গাছ উপড়ে ফেলেছে। এই অঞ্চলের বাসিন্দারা নিরাপদ জায়গায় যাওয়ার চেষ্টা করছেন।  স্থানীয় প্রশাসন এবং বেসরকারী সংস্থাগুলি উপকূলীয় বাসিন্দাদের নিরাপদ ও উচ্চতর স্থানে যাওয়ার জন্য মাইকিং করছে। কানাডার সাস্কাচাওয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইক্লোন বিশেষজ্ঞ ও গবেষক মোস্তফা কামাল বলেছিলেন যে ঘূর্ণিঝড়ের ফলে প্রচুর জোয়ারের পানি বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। ফলস্বরূপ, নিম্নাঞ্চলের লোকগুলিকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here